ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
৪০৩

শিক্ষিকার সঙ্গে ফেসবুকে বন্ধুত্ব, বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০ এপ্রিল ২০১৯  

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয়ের পর একজন শিক্ষিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক করা হয়েছে প্রকৌশলীকে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে। 

২৮ বছর বয়সী ওই প্রকৌশলীর সঙ্গে ভুক্তভোগী শিক্ষিকার ফেসবুকে আলাপ হয় ২০১৭ সালের শেষের দিকে। কথোপকথনের একপর্যায়ে শিক্ষিকার সঙ্গে দেখা করতে চান অভিযুক্ত প্রকৌশলী। দেখা করার পর ওই শিক্ষিকাকে একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। আর সেই ঘটনার ভিডিও ধারণ করে রাখেন।

কথা অনুসারে না চললে ভিডিওটি প্রকাশ করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে দিনের পর দিন ওই শিক্ষিকাকে প্রতারিত করে আসছিলেন তিনি। নিরুপায় হয়ে ওই নারী পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত প্রকৌশলীকে আটক করেছে পুলিশ।

দিল্লির পুলিশ কর্মকর্তা বিজয়ন্ত আর্য জানান, আটক ব্যক্তির নাম কিষাণ। ধর্ষণের অভিযোগে ওই প্রকৌশলীকে আটক করা হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবং ৬৭ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

ওই শিক্ষিকার অভিযোগ, ২০১৭ সালের অক্টোবরে কিষাণের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। কথোপকথনের এক পর্যায়ে দেখা করতে চান তিনি।  আদর্শ নগরের একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে গিয়ে সেখানেই ধর্ষণ করেন।

তিনি আরো বলেন, বিয়ের প্রতিশ্রুতি বারবার দিয়েও কেবল তারিখ পেছাতে থাকে নানা অজুহাতে। ভিডিওটি ইনস্টাগ্রামে আপলোড হয়েছে বলে জানতে পারি। সেটা জানার পর থেকেই ভিডিওগুলো মুছে ফেলার অনুরোধ করি। কিন্তু আমার অনুরোধ রাখেনি সে। নিরুপায় হয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করি। 

আটক ব্যক্তির মোবাইল তল্লাশি করে পুলিশ জানতে পারে, ভুয়া অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ভিডিও আপলোড করেছেন অভিযুক্ত কিষাণ।

ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর