ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৬ ১৪২৬

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪১

১০

যে কারণে মাহফুজ ও মতিউর রহমানের সঙ্গে বৈঠকে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

গণতান্ত্রিক পন্থায় নির্বাচিত হতে না পেরে সন্ত্রাসী হামলার মাধ্যমে ক্ষমতায় আসতে চাওয়া বিএনপি তাদের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট পাল্টিয়ে এখন বার বার বৈঠকে বসছে বিদেশি কূটনৈতিকদের সঙ্গে। যার ধারাবাহিকতায় এবার বিএনপির অঘোষিত প্রতিনিধি ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম ও প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের সঙ্গে গোপন বৈঠকে বসেছিলেন ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন।

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে ইংরেজি দৈনিক ‘ডেইলি স্টার’ এর কার্যালয় পরিদর্শনের এক ফাঁকে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন উক্ত সম্পাদকদ্বয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন। অনির্ধারিত এই পরিদর্শনে এসে ঘন্টাখানেক পরে তিনি বেরিয়ে যান।

তথ্যসূত্র বলছে, ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের আগ মুহূর্তেও ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত বিএনপির মেয়র প্রার্থীদের নিয়ে একাধিক গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। কিন্তু সিটি নির্বাচনে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের ফলে সকল ষড়যন্ত্র ভেস্তে গিয়েছিল। এবারও আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের আগে বিএনপির অঘোষিত দুই প্রতিনিধি ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম ও প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের সাথে গোপন বৈঠকে বসেন ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত।

এদিকে নির্বাচনের আগ মুহূর্তে অন্যদেশের হাইকমিশনারের সঙ্গে গোপন বৈঠককে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে বিবেচনা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। এ প্রসঙ্গে একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, জনগণের ভোটের ওপর আস্থা না থাকলেই কেউ এমন কাজ করতে পারে। নতুবা কেউ কি কারণে প্রকাশ্যে ঘটা করে নির্বাচনের বিষয়ে এমন গোপন বৈঠকে বসবেন। এরকম বৈঠক হলে সাধারণ কূটনৈতিক শিষ্টাচার অনুযায়ী গণমাধ্যমকে ব্রিফ করার রেওয়াজ রয়েছে। অথচ কূটনৈতিকরা কোনো রেওয়াজ ছাড়াই এই বৈঠক কিভাবে করলেন এনিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রশ্ন উঠেছে। এটা নিতান্তই দুঃখজনক।

নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে জয়ী হতে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান তার চট্টগ্রামের বাসায় মাহফুজ আনাম ও মতিউর রহমানের সঙ্গে বসে দফায় দফায় গোপন বৈঠক করেছিলেন। আর সেখানে ছক আঁকা হয়েছে, কিভাবে সিটি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করে সরকারকে চাপে ফেলা যায়। তার ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবেই মাহফুজ আনাম ও মতিউর রহমানের ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। বিশেষ করে মিডিয়ার মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করার রোডম্যাপ দেখাতেই এই দুই সম্পাদক ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসনের সঙ্গে গোপন বৈঠকটি করেন বলেই সূত্র নিশ্চিত করেছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে পর্যবেক্ষক নিয়োগ নিয়ে বেশ চাঞ্চল্য দেখা দেয় বিদেশি কূটনীতিক পাড়ায়। তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তৎপর ছিলেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার। এমনকি বিএনপির মনোনীত প্রার্থীদের বাসায় গিয়েও বৈঠক করেছিলেন তিনি।

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটির নির্বাচন নিয়ে ব্রিটিশ হাইকমিশনার ডিকসন এমনই কোন তৎপরতায় যুক্ত হতে যাচ্ছেন বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা। জানা গেছে, চ্যাটারটন ডিকসন ২০১৯ সালের মার্চ এ বিদায়ী হাইকমিশনার আলিসন ব্লেকের জায়গায় নিযুক্ত হয়েছিলেন।

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
দৈনিক কিশোরগঞ্জ
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর