ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • মঙ্গলবার   ১৪ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪২৭

  • || ২৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
৯৯২

‘বার্বি ডল’ যেভাবে তৈরি হলো

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

১৯৫৯-সালে যুদ্ধাস্ত্রের নাকশাবিদের হাতে তৈরি হয় বার্বি ডল। এর প্রস্তুতকারক কোম্পানি ‘ম্যাটেল’। বহুল প্রচলিত তথ্য হলো- ম্যাটেলের কর্ণধার রুথ হ্যান্ডলার নিজের কন্যাশিশুকে প্রাপ্তবয়ষ্ক আকৃতির পুতুল বানিয়ে খেলতে দেখে পুতুল প্রস্তুত করার সিদ্ধান্ত নেন। ভবিষৎ স্বপ্নকেও পুতুল খেলার মধ্য দিয়ে বোঝানোর উদ্যোগ নেন। তবে সত্য হলো- বার্বি ডল তৈরির পেছনে এই একমাত্র গল্প নয়। রুথ ইউরোপে বেড়াতে গিয়ে দেখেন পূর্ণবয়স্ক নারী শরীরের অধিকারী পুতুল ‘বিল্ড লিলি’। ওই পুতুলটি ছিলো মূলত জার্মানের জনপ্রিয় ট্যাবলয়েড ‘বিল্ড’ এর কার্টুন চরিত্র। ওই চরিত্রটি ইউরোপের পুরুষ সমাজে তুমুল জনপ্রিয়তা পায়। কার্টুন চরিত্র ‘বিল্ড লিলি’ উচ্চাভিলাষ অর্জনের জন্য নারীত্ব ও যৌনতাকে ব্যবহার করেছিল। পরবর্তীতে লিলি পুতুল অ্যাডাল্ট শপে যৌন সামগ্রী হিসেবে বিক্রি হতো। এক সময় শিশুদের খেলনা হিসেবেও এর ব্যবহার বাড়তে থাকে।

রুথ এই লিলি পুতুলের মধ্যেই ব্যবসায় বাজিমাত করার সম্ভাবনা দেখতে পান। লিলির আদলে তৈরি করা হয় ‘বার্বি ডল’। এর নকশা করেন জ্যাক রায়ান। যিনি অস্ত্র প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান রেথেওন-এর নকশাবিদ। তার সম্পর্কে ভয়ানক তথ্য হলো- পেন্টাগনের স্নায়ুযুদ্ধের সময় হক্ ও স্প্যারো মিসাইলের নকশা তিনিই তৈরি করেছিলেন। এখন প্রশ্ন আসে, তাহলে বার্বি ডল প্রস্তুত করতে জ্যাক রায়ানকেই কেন ডাকা হলো। তার কারণ, যুদ্ধাস্ত্রের মতো ভয়ানক জিনিসকেও তিনি দারুণ দক্ষতায় নান্দনিক করে তুলতে পারতেন। সেই যুদ্ধাস্ত্র নাকশাবিদের হাতে তৈরি বার্বি ডলের মাধ্যমে মূলত ‘বিল্ড লিলি’-এর পুনর্জন্ম হলো মেয়েশিশুর খেলার পুতুল রুপে।

বার্বি ডলকে কখনো উপস্থাপন করা হয়েছে ফ্যাশন মডেল, আবার কখনো বিমানবালা, শিক্ষিকা ও নার্স হিসেবে। সত্তরের দশকে শক্তিশালী নারীবাদী আন্দোলনের পর গণমাধ্যম ও পপুলার সংস্কৃতিতে নারীর লিঙ্গীয় উপস্থাপন/পরিবেশন সমালোচনার মুখে পড়ে। অবস্থা বুঝে ম্যাটেল কোম্পানী বার্বিকে বৈচিত্রময় পেশাজীবি হিসেবে উপস্থাপন করতে শুরু করে। কোম্পানি ম্যাটেল ঘোষণা দেয়, ‘বার্বির পেশা আধুনিক নারীর পেশার প্রতিচ্ছবি’। পরবর্তীতে বার্বি ডলকে নভোচারী ও ডাক্তার রূপেও দেখা গেছে। তবে মজার ব্যাপার এই  যে, ম্যাটেলের মার্কেটিং ম্যানেজার বেভারলি কেনেডি ১৯৮৭ সালে মিজ (এমএস) পত্রিকায় দেয়া এক সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেন, নভোচারী ও ডাক্তার বার্বি বাজারে ভালো চলেনি। এ ধরণের পোশাকে বার্বিকে রাখা হয়েছে প্রগতিশীল চেহারা দেখানোর স্বার্থেই। বলা বাহুল্য, বার্বি ডলকে প্রগতিশীল রূপে প্রকাশ করা হলেও, ঝলমলে গ্ল্যামার আর গোলাপি নারীত্বই মূল উপজীব্য।

তথ্যসূত্র : পুতুলখেলার রাজনীতি: বার্‌বি কাহিনী, নাসরিন খণ্দকার।  

ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর