ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
৬৭

মন্ত্রিসভা

বতর্মান মন্ত্রিসভাই বহাল থাকবে, ৪ টেকনোক্র্যাট বাদ

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৮  

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনের সময় বতর্মান মন্ত্রিসভাই বহাল থেকে দায়িত্ব পালন করবে। নিবার্চনের সময় এ মন্ত্রিসভাকে ছোট করে নিবার্চনকালীন সরকার গঠন করা হচ্ছে না। শুধু যারা অনিবাির্চত বা টেকনোক্র্যাট শাখায় (জাতীয় সংসদ সদস্য নন) ছিলেন তাদের বাদ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা জানিয়েছেন। বৈঠক শেষে একাধিক মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়। প্রধানমন্ত্রীর কাযার্লয়ের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৈঠকে অনিধাির্রত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মন্ত্রিপরিষদ যেভাবে আছে সেভাবেই থাকবে। সংবিধানে নিবার্চনকালীন সরকার বা নতুন করে মন্ত্রিসভা ছোট করতে হবে এমন কিছু বলা নেই। গতবার তারা করেছিলেন সব দলকে (সংসদে যাদের প্রতিনিধি ছিল) রাখার জন্য। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বতর্মানে মন্ত্রিসভায় টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী যারা আছেন তারা থাকবেন না। এ সময় তিনি বতর্মান মন্ত্রিসভায় থাকা চারজন টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীকে পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার নিদের্শ দেন। প্রধানমন্ত্রীর নিদেের্শর পর গতকাল সন্ধ্যায় চার টেকনোক্রাট মন্ত্রী পদত্যাগ করেন। বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, তত্ত¡াবধায়ক সরকার বাতিল করে দেয়ার সময় হাইকোটের্র রায়ে বলা আছে, নিবার্চনের সময় তফসিল ঘোষণার পর সরকারের মন্ত্রিসভায় অনিবাির্চত কেউ থাকতে পারবেন না। তাই আইনগত বাধ্যবাধকতার কারণে অনিবাির্চতরা থাকতে পারবেন না। বতর্মান মন্ত্রিসভায় চারজন টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী হলেন- বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, ডাক, টেলিযোযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং ধমর্মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। সূত্র আরও বলছে, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিবার্চনের তফসিল ঘোষণার পর মন্ত্রীদের কোনো ধরনের সরকারি সুযোগ-সুবিধা না নেয়া এবং কঠোরভাবে আইন মেনে চলার নিদের্শ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নিবার্চনের তফসিল ঘোষণার পর কোনো মন্ত্রী সরকারি কোনো সুযোগ সুবিধা নিতে পারবেন না। তাদের কঠোরভাবে এ আইন মেনে চলতে হবে। সভায় অংশ নেয়া একাধিক সূত্র জানায়, ওই সময় আলোচনায় চলমান সংলাপের প্রসঙ্গ এলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সবার সঙ্গেই তো আলোচনা করেছেন। আলোচনা তো শেষ পযাের্য়। ৭ নভেম্বরের পর আর কোনো আলোচনা হবে না। এখন তারা কি সারা বছর ধরে আলোচনা করবেন?