ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • শুক্রবার   ১০ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৬ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪১

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
৭৯

করোনা মোকাবিলায় অবদান রাখছেন তার মতো সৎ ব্যবসায়ীরা

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১ মার্চ ২০২০  

মানবিক দৃষ্টি সুন্দর পৃথিবীর পূর্বশত। প্রত্যেক মানুষের জাগ্রত মানবিকতা সব বিপদ মোকাবিলা করতে সক্ষম। পুঁজিবাদের মানসিকতা রুখতে পারলেই আর্বিভূত হবে ভালোবাসা, সহযোগিতা, সহমর্মিতার বিশ্ব। পৃথিবীতে যতবার কঠিন বিপদ এসেছে, বিচক্ষণতা ও মানবিকতায় সব বিপদ জয় করেছে মানুষ। সম্প্রতি বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) ছড়ানোয় নানা দেশে নানাভাবে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে।
যদিও অনেক আশার খবর পাওয়া যাচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নানা দেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আর্থিক অনুদান দিচ্ছে। তার ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশকে সাড়ে ৮০০ কোটি টাকা আর্থিক অনুদান দিয়েছে সংস্থাটি। কিন্তু দেশের ভেতর অধিক মুনাফার লোভে ব্যবসায়ীরা করোনা মোকাবিলার সরঞ্জাম গুদামজাত করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করেছেন। যদি ব্যবসায়ীরা করোনাভাইরাস মোকাবিলায় জীবাণুনাশক ও প্রতিরোধক সরঞ্জাম নিয়মিত বাজারজাত না করেন, হয়তো মানুষের মাঝে ভাইরাসটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই ভাইরাস মোকাবিলায় সৎ ফার্মেসি ব্যবসীসহ অন্যান্য ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসতে হবে।

এদিকে আরো আশার খবর হলো যে, দেশের অনেক ব্যবসায়ীরা অসাধু পথ অবলম্বন না করে সৎভাবে ভাইরাস প্রতিরোধক সরঞ্জাম বিক্রি করছেন। আগের মতো ২০ টাকার মাস্ক এখনো ২০ টাকায় বিক্রি করছেন। পরিস্থিতি বুঝে অধিক মুনাফার লোভ করছেন না। এসব ব্যবসায়ীরা মানবিকতা লালন করেন। মানুষকে ভালোবাসেন। লোভের ঊর্ধ্বে মানুষকে নিরাপদ দেখতে ভালোবাসেন।

চীনের সরকারি এপিডেমিওলজিস্টের একটি দল জানিয়েছে, কোভিড-১৯ নামের করোনাভাইরাস বাতাসে ৩০ মিনিটের মতো ভেসে থাকে। যা চার দশমিক পাঁচ মিটার অর্থ্যাৎ ১৪ দশমিক ৭ ফুট জায়গা অতিক্রম করতে সক্ষম। সুতরাং অন্যান্য ভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বা জীবাণুনাশক স্যানিটাইজার অথবা জীবাণুনাশক সাবান ব্যবহারের মতো করোনাভাইরাস প্রতিরোধে একই পন্থা অবলম্বন  করতে হবে। চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতামত অনুযায়ী করোনা মোকাবিলায় মাস্ক, জীবাণুনাশক স্যানিটাইজার ব্যবহার করা জরুরি। তাই নায্যমূল্যে ভাইরাস প্রতিরোধক সরঞ্জাম ভোক্তারা পেলে নিজেদের নিরাপত্তা জোরদার করা সম্ভব হবে।

ব্যবসায়ীরা অসাধু উপায়ে মাস্ক, জীবাণুনাশক সরঞ্জাম মজুদ করলেই করোনাভাইরাস ভয়ানক আকার ধারণ করতে পারে। কারণ ভাইরাসটি মানুষ থেকে মানুষের মাঝেই ছড়ায়। তাই মাস্ক বা জীবাণুনাশক সরঞ্জাম অথবা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য গুদামজাত করলে ভাইরাসটি সবার মাঝে ছড়িয়ে যাবে। এতে মহামারি রূপ ধারণ করা করোনাভাইরাস থেকে আপনি অসাধু ব্যবসায়ী রক্ষা পাবেন কিভাবে তার উত্তর হয়তো বিপদের সময় খোঁজে পাবেন না।

তাই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সব সরঞ্জাম মানুষের জন্য নায্যমূল্যে সহজলভ্য করুন। মানবতার পরিচয় রেখে মানবতার সেবা করুন। সবাইকে সুস্থ রাখুন। সৎ ব্যবসা করে মনকে তৃপ্ত করুন।

ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর