ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিব ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৪ ১৪২৬

  • || ০৪ শা'বান ১৪৪১

২১

আজ মুক্তি পাচ্ছেন খালেদা জিয়া

নিজস্ব ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২০  

আজ মুক্তি পেতে যাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এখনো কিছু প্রক্রিয়া বাকি থাকায় মঙ্গলবার রাতে মুক্তি পাননি তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, সব প্রক্রিয়া শেষ হলেই তিনি মুক্তি পাবেন। আজ বুধবার দুপুরের মধ্যেই খালেদা জিয়ার মুক্তির আইনি প্রক্রিয়াগুলো শেষ হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে টেলিফোনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘তার বাসায় থেকে চিকিৎসা করার সুযোগ দেওয়ার কথা তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বিবেচনা করেছেন। এখন পর্যন্ত সেই ফরমাল সিগনেচারটির অপেক্ষায় রয়েছি আমরা। এখানে ডকুমেন্টেশনের ব্যাপার রয়েছে, এখানে গভর্নমেন্ট অর্ডারের ব্যাপার রয়েছে। এই সবগুলোই হবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাইন করার পরে।’

দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দণ্ড ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে তাকে দুই শর্তে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে। ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১-এর উপধারা ১ ধারা অনুযায়ী বয়সের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে মানবিক কারণে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে। মুক্তিকালীন খালেদা জিয়াকে ঢাকায় তার নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। তিনি বিদেশ যেতে পারবেন না- এ দুই শর্তে মুক্তি মিলছে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর।

গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩টায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সংবাদ সম্মেলনে সরকারের এ সিদ্ধান্তের তথ্য তুলে ধরেন। দণ্ড স্থগিতের প্রস্তাব বিকেলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, আদেশে প্রধানমন্ত্রী স্বাক্ষর করলে তা কারাগারে পাঠানো হবে। তারপরই বেগম জিয়া মুক্তি পাবেন।

খালেদা জিয়া কখন মুক্তি পাচ্ছেন? এ প্রশ্নে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু সাংবাদিকদের বলেন, আইন মন্ত্রণালয় থেকে তার মুক্তিসংক্রান্ত নির্দেশনা তারা পেয়েছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখন আইন দেখে কাগজপত্র তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠাবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অনুমোদনের পর ফের সেটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ফিরে আসবে। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে কারাগারে কাগজপত্র পাঠানো হবে। এরও পর কারা কর্তৃপক্ষ খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা নেবে।

এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান গতকাল বলেন, আশা করি আগামীকাল (আজ বুধবার) দুপুরের মধ্যেই খালেদা জিয়ার মুক্তির আইনি প্রক্রিয়াগুলো শেষ হবে।

খালেদা জিয়ার বোন সেলিনা ইসলাম গতকাল রাতে টেলিফোনে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ওনাকে বলেছি, ওনাকে (খালেদা জিয়া) উন্নত চিকিৎসার জন্য বাইরে নিয়ে যেতে চাই। তার দুহাত বেঁকে গেছে; দাঁড়াতে পারেন না, হাঁটতে পারেন না। বুকে-পিঠে ব্যথা। শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। ডায়বেটিকসও নিয়ন্ত্রণে নেই। তিনি এখন মৃত্যুশয্যায়। তাকে মুক্তি দিন। এর পরিপ্রেক্ষিতে উনি (প্রধানমন্ত্রী) এ কাজ করেছেন। এজন্য অনেক ধন্যবাদ।’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ড নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দী খালেদা জিয়া। তাকে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে বিশেষ কারাগার স্থাপন করে সেখানে রাখা হয়। গত বছরের এপ্রিল থেকে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন।

দৈনিক কিশোরগঞ্জ
দৈনিক কিশোরগঞ্জ
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর